বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯
Home > বিনোদন > আয়োজকদের ফাঁসালেন ভারতীয় শিল্পী, মঞ্চ মাতালেন নোবেল

আয়োজকদের ফাঁসালেন ভারতীয় শিল্পী, মঞ্চ মাতালেন নোবেল

বিনোদন ডেস্ক ॥
দুই হাজার, পাঁচ হাজার ও পনেরো হাজার টাকার টিকিট কেটে শুক্রবার (১৯ জুলাই) রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটির নবরাত্রী হলে কনসার্ট উপভোগ করতে এসেছিলেন অনেক দর্শক শ্রোতারা। না, গান শুনে টাকা উসুল হয়নি তাদের।

অনুষ্ঠানের প্রধান চমক ছিলেন ভারতের দুই শিল্পী ‘আশিকি ২’ সিনেমার ‘শুন রাহা হ্যায়’ খ্যাত শিল্পী অঙ্কিত তিওয়ারি ও বলিউড তারকা সানা খান। বাংলাদেশ থেকে ছিলেন ভারতীয় টিভি চ্যানেল ‘জি বাংলা’র ‘সা রে গা মা পা’ রিয়েলিটি শো-এর মাধ্যমে তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়া কণ্ঠশিল্পী মাঈনুল আহসান নোবেল ও তাসনিম আনিকা।

সন্ধ্যা ৬টায় কনসার্ট শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ২ ঘণ্টা বিলম্বে রাত সাড়ে ৮টার পরে কনসার্ট শুরু হয়। কনসার্টে অনুপস্থিত ছিলেন না অঙ্কিত তিওয়ারি। অঙ্কিত আসছেন না এ খবর আগেভাগেই ছড়িয়ে পড়েছিল নবরাত্রী হলে। তাই দর্শকের উচ্ছ্বাস কমে যায়।

তাসনিম আনিকা স্টেজে আসেন সাড়ে ৯টার পরে। বাপ্পা মজুমদারের ‘বায়ান্না তাস’, আইয়ুব বাচ্চুর ‘সেই তুমি’, রুনা লায়লার ‘দমাদম মাস্ত কালান্দার’ নিজের গাওয়া ‘নোলক’ সিনেমার ‘জলে ভাসা ফুল’সহ বেশ কিছু গান গেয়ে শোনান।

এর পরেই স্টেজে হাজির হন ভারতীয় শিল্পী সানা খান। ‘ছাম্মা ছাম্মা’, ‘বাম ডিগি ডিগিবাম’, ‘পাল্লু লাটকে’সহ জনপ্রিয় বেশকিছু হিন্দি গানের সঙ্গে পারফর্ম করেন।

১০টা ৪৬ মিনিটে স্টেজে আসেন নোবেল। শুরু করেন আইয়ুব বাচ্চুর ‘সেই তুমি’ গান দিয়ে। এরপর ‘হাসতে দেখো গাইতে দেখো’ গানটি গেয়ে শোনান। জেমসের গাওয়া ‘তারায় তারায়’, ‘বাবা’ গানে উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠে দর্শক। খ্যাতিমান শিল্পীদের জনপ্রিয় সব গান কাভার করে মানুষের মন জয় করে নেন এই শিল্পী।

কনসার্টের উপস্থাপক ছিলেন ফুয়াদ ও শান্তা জাহান। যৌথভাবে এই কনসার্টের আয়োজন করে এটিএন ইভেন্টস ও সানগ্লো এন্টারটেইনমেন্ট।

নোবেলের গান গাওয়া শেষে এটিএন ইভেন্টসের ডিরেক্টর মাসুদুর রহমান, সানগ্লো এন্টারটেইনমেন্টের ডিরেক্টর (ইভেন্টস) মির্জা সাজিদ অঙ্কিত তেওয়ারি অনুষ্ঠানে হাজির না হওয়ার দর্শকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন।

মাসুদার রহমান বলেন, ‘অঙ্কিতের সঙ্গে সব কথাবার্তা চূড়ান্ত হয়েছিল। আমরা তার সম্মানীও পরিশোধ করেছি। হঠাৎ করেই মুড ভালো নেই বলে উনি আমাদের শো ক্যানসিল করেছেন। আমাদের জানিয়েছেন উনি ফ্লাইট মিস করেছেন। উনার তিনজন মিউজিশিয়ানও বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। কলকাতাতেও উনার কিছু মিউজিশিয়ান অবস্থান করছেন। দুই বাংলার শিল্পীদের নিয়ে আমরা চমৎকার একটি আয়োজন উপহার দিতে চেয়েছিলাম।’

মাসুদার রহমান আরও বলেন, ‘আপনারা নোবেলের ও আনিকার গান উপভোগ করেছেন। যেহেতু অঙ্কিত আসার কথা বলেও আসেননি, টিকিটে আমাদের অফিসের ফোন নম্বর দেওয়া আছে। কেউ টিকিটের মূল্য ফেরত চাইলে, আমরা সেটা ফেরত দিব।’