শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০
Home > গ্যালারীর খবর > কাপাসিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৪ ব্যাচের মিলন মেলা

কাপাসিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৪ ব্যাচের মিলন মেলা

এম. এইচ নোমান/আকরাম হোসেন রিপন
স্টাফ রিপোর্টার ॥
গাজীপুর: “এসো বন্ধু মিলি প্রাণের বন্ধনে আবার হারাই, ফেলে আসা সেই কিশোর বেলায়” এই আবেগ বুকে ধারণ করে কাপাসিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৪ ব্যাচ এর ফ্যামিলি পিকনিক ২০২০ গত ১লা ফাল্গুন শুক্রবার উপজেলার খোদাদিয়া এলাকার একটি রিসোর্টে সকাল থেকে শুরু হয়ে সন্ধায় শেষ হয়েছে। বনভোজনে উই ব্যাচের ৫০ জন শিক্ষার্থীর অধিক সপরিবারে অংশ নেয়।

প্রকৃতির সাজানো গুছানো বিচিত্র আর অফুরন্ত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের রুপরহস্যের মহিমায় ভরা এক পর্যটন কেন্দ্র ১৯শে এপ্রিল। পর্যটকদের আকর্ষণের জন্য একে সাজানো হয়েছে নানাভাবে নানা ভঙ্গিমায়। এর বাতাসে দোল খাওয়া বৃক্ষরাজি যেন দুঃখে ভরা হৃদয়ে কোমল ভাবে হাত বুলিয়ে দেয়, এই কোমল হাতের ছোঁয়া যার হৃদয়ে পড়েছে, থাকতেই পারেনা তার কোন দুঃখ। এখানে এলে যে কেউ ভুলে যাবে তার কঠিন পৃথিবীটাকে। এখানকার অপরুপ সৌন্দর্যের মুগ্ধতা মনকে ভাবুক করে তোলে। প্রকৃতিক এই আল্পনা ছরানো স্থান ভ্রমন পিপাসুদের মনের যেন এক অমৃত খোরাক। সকাল থেকেই রিসোর্টে ব্যাচের শিক্ষার্থিরা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আসতে থাকে এক পর্যায়ে এটি মিলন মেলায় পরিনত হয়। সারাদিনই চলে একের সঙ্গে অপরের কুশল বিনিময়। আগতদের জন্য দুপুরে আয়োজন করা হয় দেশীয় খাবার বিভিন্ন প্রকারের ভর্তা, মাছ, মাংস, ডাল ইত্যাদি। দিনব্যাপি অনুষ্ঠানে ছিল ক্রিড়া প্রতিযোগিতাও। বিকালে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা ও পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান। সংগঠনটির সভাপতি ডা. শাহীন শিকদার জানায়, আমরা পরবর্তীতে প্রতি বছরই এমন প্রোগ্রাম করার চেষ্ঠা করব। আমরা সারা জীবন যেন এমনিভাবে বছরে একবার মিলিত হতে পারি এটাই আমার এবং আমাদের সকলের প্রত্যাশা। সন্ধার পূর্বমুহুর্তে ঘন্টা বাজে বিদায় নেয়ার সবারই চোখে ছিল ছল ছল ভাব তবুও সবার মনে বুক ভরা আসা আবারও এমনি ভাবে দেখা হবে। আবারও এমনি একটি দিন কাটানোর আসায় বিদায় নেয় সবাই।