বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯
Home > রাজনীতি > জয়ের তথ্যকে ভয়ঙ্কর নীল নকশার অংশ বললেন রিজভী

জয়ের তথ্যকে ভয়ঙ্কর নীল নকশার অংশ বললেন রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার ॥
খালেদা জিয়া ও আগামী নির্বাচন নিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয়ের দেওয়া তথ্যকে ষড়যন্ত্র ও ভয়ংকর নীল নকশার অংশ বলে অভিহিত করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুুক্তি উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়ের বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে নিয়ে যা বলেছেন, সেটি একটি ‘টপ ডেমোক্রেটিক কান্ট্রিতে’ বসবাসকারী ব্যক্তির ওপর সেদেশের সংস্কৃতির যে প্রতিফলন ঘটে, সেটি না হয়ে বরং টুঙ্গিপাড়ার সংস্কৃতির প্রতিফলনই ফুটে উঠেছে। রাষ্ট্রকে সন্ত্রাসী চরিত্র দান করে ক্ষমতা-বিলাসে বিভোর থাকা ক্ষমতাসীন নেতাদের অশুভ ইচ্ছার বারবার বাস্তবায়ন হবে না। এবারে জোর করে কিছু করতে গেলে জনগণ সেটির উপযুক্ত জবাব দিতে প্রস্তুত হয়ে আছে- বলে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

সজিব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জয়লাভের ব্যাপারে কোনো সংশয় নেই। এমন কথার প্রেক্ষিতে রিজভী বলেন, নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা বলেছেন-তিনি মেশিন দিয়ে জরিপ চালিয়েছেন। তিনি জনগণের মধ্যে জরিপ চালাননি। তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা যে মেশিনের কথা বলছেন সেটি ‘আওয়ামী মেশিন’। সেই মেশিনের জরিপে জনগণের প্রকৃত মনোভাব ফুটে ওঠেনা, মেশিনে শুধু আওয়ামী মনোভাবই ফুটে ওঠে। তথ্য ও প্রযুক্তি উপদেষ্টার সেই মেশিন বাকশালী যন্ত্রপাতি দিয়ে তৈরী।

অধ:স্তন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার উল্লেখ করে বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, এই বিধিমালায় বিচার বিভাগের স্বাধীনতা বলে কিছু নেই। মাসদার হোসেন মামলায় বিচার বিভাগকে পৃথকীকরণ নিয়ে সুপ্রিমকোর্ট যে নির্দেশ দিয়েছিল তার পরিপন্থী। এমনকি সংবিধানেরও পরিপন্থী। এই শৃঙ্খলাবিধি সংবিধানের ২২ অুনচ্ছেদ লঙ্ঘন করেছে- বলে মনে করেন রিজভী।

শৃঙ্খলাবিধির মাধ্যমে প্রশাসন থেকে বিচার বিভাগকে পৃথকীকরণের মৃত্যু ঘটেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সরকারের হুকুমেই নিম্ন আদালতের বিচারকদের চলতে হবে। বিচারকরা সবসময় আতংকে থাকবে। চাকরি রক্ষার্থে নির্বাহী বিভাগের সকল অন্যায় আবদার শুনতে ও পালন করতে হবে। সুবিচার-ন্যায়বিচার কালেরগর্ভে হারিয়ে যাবে।

আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ ও মানহানির মামলার হিড়িক শুরু করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশেই এধরণের মামলা দায়ের করা হচ্ছে। আমি বিএনপি’র পক্ষ থেকে মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে তা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।

ছাত্রলীগ ‘স্কুল পর্যায়ে কমিটি ঘোষণা’ করবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই ঘোষণার পর কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে হানাহানি ছড়িয়ে পড়েছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীরা জ্ঞান-বিজ্ঞানের চর্চা এবং ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় সুস্থ জীবনযাপনে যাতে উদ্বুদ্ধ হতে না পারে সেজন্যই উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ধ্বংস করে এখন মাধ্যমিক পর্যায়েও ছাত্রলীগের কমিটির নামে দলীয় সন্ত্রাসী দল তৈরী করছে। এটি শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করার মাধ্যমে গোটা জাতিকে পঙ্গু করার একটি পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র- বলেন রিজভী।