রবিবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২০
Home > বিনোদন > নায়করাজ রাজ্জাক আর নেই

নায়করাজ রাজ্জাক আর নেই

বিনোদন ডেস্ক ॥

বাংলাদেশের খ্যাতিমান নায়ক রাজ রাজ্জাক ইত্তেকাল করেছেন। আজ সোমবার সন্ধ্যায় (২১ আগষ্ট) রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।

প্রাথমিক জীবন
রাজ্জাক পশ্চিমবঙ্গের (বর্তমান ভারতের) কলকাতার টালিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। কলকাতার খানপুর হাইস্কুলে সপ্তম শ্রেণীতে পড়ার সময় স্বরসতী পূজা চলাকালীন সময়ে মঞ্চ নাটকে অভিনয়ের জন্য তার গেম টিচার রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী তাঁকে বেছে নেন নায়ক অর্থাৎ কেন্দ্রীয় চরিত্রে। শিশু-কিশোরদের নিয়ে লেখা নাটক বিদ্রোহীতে গ্রামীণ কিশোর চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়েই নায়ক রাজের অভিনয়ে সম্পৃক্ততা।

অভিনয় জীবন
তিনি ১৯৬৪ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে পাড়ি জমান। প্রথমদিকে রাজ্জাক তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশনে “ঘরোয়া” নামের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করে দর্শকদের কাছে জনপ্রিয় হন। নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে তিনি আব্দুল জব্বার খানের সাথে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করার সুযোগ পান। সালাউদ্দিন প্রোডাকশন্সের তেরো নাম্বার ফেকু ওস্তাগড় লেন চলচ্চিত্রে ছোট একটি চরিত্রে অভিনয় করে সবার কাছে নিজ মেধার পরিচয় দেন রাজ্জাক। পরবর্তীতে কার বউ, ডাক বাবু, আখেরী স্টেশন-সহ আরও বেশ ক’টি ছবিতে ছোট ছোট চরিত্রে অভিনয়ও করে ফেলেন। পরে বেহুলা চলচ্চিত্রে তিনি নায়ক হিসেবে ঢালিউডে উপস্থিত হন সদর্পে। তিনি প্রায় ৩০০টি বাংলা ও উর্দু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। পরিচালনা করেছেন প্রায় ১৬টি চলচ্চিত্র।

পুরস্কার ও সম্মাননা
১৯৯০ সাল পর্যন্ত বেশ দাপটের সাথেই ঢালিউডে সেরা নায়ক হয়ে অভিনয় করেন রাজ্জাক। এর মধ্য দিয়েই তিনি অর্জন করেন নায়করাজ রাজ্জাক খেতাব। অর্জন করেন একাধিক সম্মাননা। এছাড়াও, রাজ্জাক জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিলের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে কাজ করছেন।

জন্মদিন জন্ম ২৩ জানুয়ারি ১৯৪২ (বয়স ৭৫)। টালিগঞ্জ, কলকাতা, ব্রিটিশ ভারত (এখন ভারত)।

বাসস্থান: ঢাকা, বাংলাদেশ।

জাতীয়তা: বাংলাদেশী।

নাগরিকত্ব: বাংলাদেশ।

পেশা: অভিনেতা, প্রযোজক, পরিচালক।

কার্যকাল: ১৯৬৪–২০১৭।
সন্তান বাপ্পারাজ (রেজাউল করিম)
নাসরিন পাশা শম্পা।
রওশন হোসাইন বাপ্পি।
আফরিন আলম ময়না।
সম্রাট (খালিদ হোসাইন)।