বুধবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৯
Home > প্রবাস > বিদেশে প্রত্যেকের পরিচয় হচ্ছে বাংলাদেশি- বীরমুক্তিযোদ্ধা মোয়াজ উদ্দিন

বিদেশে প্রত্যেকের পরিচয় হচ্ছে বাংলাদেশি- বীরমুক্তিযোদ্ধা মোয়াজ উদ্দিন

প্রবাস ডেস্ক ॥
বিদেশে প্রত্যেকের পরিচয় হচ্ছে বাংলাদেশি হিসেবে। যেকেউ একজনের ভাল কাজ করলে যেমন দেশের সুনাম বৃ্দ্িধ হয় আবার কোন খারাপ কাজ করলে দেশের বদনাম হয়। দীর্ঘ ৩৫ বছর কুয়েতের প্রবাস জীবনের ইতি টেনে দেশে স্বপরিবার নিয়ে দেশে ফেরার আগে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ একথা বলেন।

তিনি উন্নত জীবনের আশায় ১৯৮৪ সালে কুয়েতে পাড়ি জমান। সেই থেকে শুরু। প্রবাসী জীবনের ইতি টেনে বৃহস্পতিবার (২ মে) রাতের একটি ফ্লাইটে দেশে ফিরছেন। তিনি ৩/৪ টি কোম্পানিতে কাজ করেছেন। সর্বশেষ আল শোমলী এ্যান্ড ওয়ারিশ কোম্পানিতে ম্যানেজার হিসেবে পঁচিশ বছর ধরে কর্মরত ছিলেন।
তিনি আরও বলেন, ১৯৯১ সাল পর্যন্ত কুয়েতে বাংলাদেশের খুব ভাল সুনাম ছিল। কুয়েতের স্বাধীনতার পর অভিবাসীদের ক্রাইম প্রতিবেদনে বাংলাদেশ নাম ছিল না এখানে। বাংলাদেশের সেনাবাহিনী, প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি পদে বাংলাদেশিরা কাজ করেছে।

কিন্ত ১৯৯১ সালের পর বিভিন্ন অপরাধ ও মামলার আসামীরা এখানে এসে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িয়ে দেশের সুনাম নষ্ট করেছে। সরকার নতুন নতুন শর্ত আরোপ করে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য। এরপর ভিসাও বন্ধ হয়ে যায় বাংলাদেশিদের। হাজার হাজার বাংলাদেশি শ্রমিক নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছে এখানে। মুক্তিযোদ্ধা মোয়েজ উদ্দিন চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের বাসিন্দা।
এক মেয়ে ও এক ছেলে। মেয়ে মরিয়ম ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্স্টাস শেষে চাকরিতে কর্মরত আছেন। ছেলে মারুফ মালয়েশিয়া ট্রেইলর বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্স্টাস শেষ করেছে। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান তিনি। তার দুই ভাই প্রফেসর সামসুদ্দিন আহম্মেদ ও নাসির উদ্দনি আহম্মেদ মুক্তিযোদ্ধা এবং জ্যাঠাতো ভাই বীর উত্তম মাজহার উল্লাহ। সূত্র: যুগান্তর