রবিবার, জানুয়ারি ১৯, ২০২০
Home > Uncategorized > বীরগঞ্জে কমেছে সবজির দাম পেঁয়াজের ঝাঁজ আগের মতোই

বীরগঞ্জে কমেছে সবজির দাম পেঁয়াজের ঝাঁজ আগের মতোই

খায়রুন নাহার বহ্নি
দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥
দিনাজপুরের বীরগঞ্জের বাজারে দু’সপ্তাহের ব্যবধানে কমতে শুরু করেছে শীতকালীন সবজির দাম। শীতের সবজি ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা, শালগম, পালংশাক, মুলাশাক, সরিষাশাক, লাউ, লাউশাকের সরবরাহ বাড়ায় বীরগঞ্জ উপজেলার হাট-বাজার গুলোতে দাম কমেছে। তবে কমেনি পেঁয়াজের ঝাঁজ।

গত সোমবার বীরগঞ্জ পৌরসভার দৈনিক বাজার, বলাকা মোড় বাজারসহ বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে, খুচরা পর্যায়ে দু’সপ্তাহ আগে শিম, টমেটো, নতুন আলুর দাম কমলেও সপ্তাহের ব্যবধানে অপরিবর্তিত রয়েছে শীতের সবজি ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা, শালগম, বরবটি, বেগুন, পেঁপে, মিষ্টি কুমড়ার দাম।

দৈনিক বাজারের ব্যবসায়ী রুবেল ইসলাম জানান, গত সপ্তাহের মতো বরবটির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা কেজি, ফুলকপি ও বাঁধাকপি আগের সপ্তাহের মতো ৩০-৩৫ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে। পেঁপে ১৮-২০ টাকা, বেগুন ২০-২৫ টাকা, মুলা ১০-১৫ টাকা, পটল ৩০-৪০ টাকা, করলা ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে মিশর থেকে আমদানিকৃত বড় আকারের পেঁয়াজ সরবরাহ বেড়েছে। বাজার ও মনভেদে এ পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৮০-২০০ টাকা, অন্যদিকে মুড়িকাটা পেঁয়াজ ১৬০-১৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে কমেনি মিয়ানমার ও দেশি পেঁয়াজের দাম। আগের মতোই ২০০ থেকে ২২০টাকা। এবং মিয়ানমারের পেঁয়াজ ১৮০-১৯০ কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা বলেছেন, শীতের সবজি সরবরাহ বাড়ায় কিছু কিছু সবজির দাম কমছে। এর মধ্যে সব থেকে বেশি দাম কমছে শিমের দাম। এখন যত দিন যাবে তত সরবরাহ বাড়বে ফলে সবধরণের সবজির দাম শিগগির কমবে। তবে ক্রেতাসাধারণরা বলছেন, বাজারে সবধরনের সবজির পর্যন্ত সরবরাহ রয়েছে। তবে শীতের কোনো সবজি বাজারে অভাব নেই। এই পরিস্থিতিতে সবধরণের সবজির দাম কমে যাওয়ার কথা। কিন্তু শিম ছাড়া কোনো সবজির দাম তুলনামূলক ভাবে কমেনি।